MCN কি, কোন MCN আপনার জন্য ভাল হবে, এবং MCN এর সুবিধা অসুবিধা কি (ভিডিও সহ)

MCN কি, কোন MCN আপনার জন্য ভাল হবে, এবং MCN এর সুবিধা অসুবিধা কি
আমরা যারা YouTube এ কাজ করি তারা সবাই মোটামুটি একটা জিনিসের সাথে খুব বেশি পরিচিত তা হচ্ছে MCN, MCN কি, MCN কি, MCN কি,  আমি আজকে আসলে এ বিষয়টি নিয়ে কথা বলব MCN কি এবং MCN এ জয়েন করলে কি কি সুবিধা পাওয়া যাবে এবং এম. সি. এন এ Join করলে কি কি অসুবিধা গুলি আপনার হতে পারে। এবং MCN এ আপনি আসলে জয়েন করবেন কিনা বা করা উচিত কি না এবং যদি আপনি MCN জয়েন করেন তাহলে কোন MCN এ আপনি জয়েন করবেন। কোন MCN আপনার জন্য Best হবে, এবং আপনার চ্যানেল এর জন্য ভালো হবে।

প্রথম প্রশ্ন হচ্ছে MCN কি: MCN হচ্ছে মাল্টি চ্যানেল Network যেটা YouTube Certified, এটার Alternative কিছু নাম আছে যেটা YouTube Partner Program বলতে পারেন, অথবা Network  Program বলতে পারি,  MCN আসলে YouTube Certified Ads কোম্পানি এ গুলো মোটামুটি সবগুলো trusted এবং YouTube certified, আপনাকে YouTube মাঝে মাঝে বলতে পারে আপনি MCN এ জয়েন করতে পারেন। এটি হচ্ছে 3D একটি কোম্পানি, আমাদের চ্যানেলে যেরকম Monetization On করার পরে গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আমরা এড পাই, MCN ঠিক সেভাবে কাজ করে কিন্তু সেটা Third Party কোম্পানির আন্ডারে। এমসিএন এ Join করলে আপনার এড গুলা গুগল অ্যাডসেন্স থেকে আসবে কিন্তু আপনার Payment নিতে হবে আপনি যে এমসিএন এ Join করলেন সে কোম্পানি থেকে বা তাদের কাছ থেকে। আসলে MCN কোম্পানিগুলোর অনেক চ্যানেল থাকে তারা একটি এডসেন্স অ্যাকাউন্ট এ তাদের সকল চ্যানেল এড করে নেয় এবং সবগুলো চ্যানেলের আয় তাদের একটি এডসেন্সে জমা হয়, এবং যারা চ্যানেলের মালেক তাদের অ্যাকাউন্ট থেকে যে পরিমাণ আয় হয় সে পরিমাণ থেকে কিছু কমিশন নেওয়ার পরে চ্যানেলের মালিক কে Payment করে থাকে, আসলে এটি হচ্ছে MCN। এখন আমরা কথা বলব MCN এর সুবিধা গুলো নিয়ে।

MCN এর সুবিধা গুলো কি কি:  তাহলে আমরা MCN থেকে কি কি সুবিধা উপভোগ করতে পারবো তা নিয়ে আলোচনা করি।
১/ Advance ড্যাশবোর্ড: প্রথমে আপনাকে mcn যেটা provide করবে সে টা হচ্ছে ইউটিউবে normal যেরকম dashboard দেখতে পান আপনারা, mcn এ একটু এডভান্স ড্যাশবোর্ড পাবেন যে ক্ষেত্রে অনেক গুলো সুবিধা আপনি পাবেন এটি আসলে আপনার ইউটিউব experience কে আরো একটু সহয করে দিবে।আপনার ইউটিউব লাইপ কে খুব বেশি সহজ করে আপনার mcn এর advance ড্যাশবোর্ড।

২/ কন্টেন্ট Protection: আমরা যখন গুগল এডসেন্স থেকে এড Use করি, অথবা YouTube এ নরমালি যখন এডসেন্স এড করে দেয় তখন আসলে আমাদের কন্টেন্ট এর কোন Protection থাকে না আর যখন কোন MCN কোম্পানিতে জয়েন করবেন তখন তারা আপনাকে একটা Content id দিয়ে দিবে এবং আপনার চ্যানেল এর কোন ভিডিও যদি অন্য কোন চ্যানেল কপি করে সেটাই আপলোড করে সে ক্ষেত্রে Automatic তারা একটি রিফড দিয়ে দিবে। সেক্ষেত্রে আপনার কনটেন্টটি হানডেট পারসেন Protection থাকবে এবং আপনি সিকোইড থাকবেন। নরমালি আমরা এডসেন্স থেকে যখন আয় করি সেক্ষেত্রে আমাদের চ্যানেলের ভিডিও গুলো আমাদের সার্চ করে দেখতে হয়  আমাদের ভিডিও গুলো আসলে কেউ কপি করছে কিনা? কিন্তু এমসিএন এ Join করলে আপনার Content Protection আপনি Automatic পেয়ে যাবেন এটা তারা দায়িত্ব নিবে আপনার ভিডিও গুলো যদি কেউ কপি করে সে ক্ষেত্রে কে কে কপি করছে সব গুলো খুজে বের করে অটো রিপড করে দিবে সেটি হচ্ছে Content Protection।

৩/ ভেরিফিকেশন বাটেজ: আমরা Normal এডসেন্স ব্যবহার করলে আমাদের চ্যানেলের 100k Subscriber যখন হয় তখনি কিন্তু আমরা আমাদের চ্যানেলের বেরিফিকেশন বাটেজ পেয়ে থাকি অথবা তখন আমাদের চ্যানেলটি ভেরিফাই হয়ে যায়, কিন্তু আপনি যখন কোন MCN কোম্পানির আন্ডারে জয়েন করবেন তখন আপনার চ্যানেলে যদি 1 থেকে 100 সাবস্ক্রাইবার ও যদি হয়ে থাকে সেই ক্ষেত্রে তারা ইচ্ছে করলে ইউটিউব এর সাথে কন্টাক্ট করে আপনাকে ভেরিফাইড বাটেজটি সংগ্রহ করে দিতে পারে, তো এটি একটি বিশাল সুবিধা আমি মনে করি 

৪/ Music library: মিউজিক এবং Background Music আসলে এমন একটি বিষয় Normal কোন ভিডিওতে যদি কেউ ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক ইউজ করেন তাহলে তার ভিডিও কোয়ালিটি 100% বেড়ে যায় অনেকেই আছেন আসলে তাদের Music ব্যবহার করা খুবই দরকার।
অনেকেই ফানি ভিডিও নিয়ে কাজ করেন বা বিভিন্ন টাইপ এবং লাইফ হ্যাক ভিডিও নিয়ে কাজ করেন, তাদের জন্য Background music কিন্তু খুবই জরুরী। আমরা Normal এডসেন্স এ যখন থাকি তখন কিন্তু আমাদের নির্দিষ্ট কিছু Music থাকে সে মিউজিক গুলা আমরা ব্যবহার করতে পারি কিন্তু আপনি যখন এমসিএন এ Join করবে তখন আপনাকে আলাদা কিছু music দিয়ে দিবে যেটা তাদের নিজস্ব সে ক্ষেত্রে আপনার কোন ধরনের কপিরাইট আসবে না বা কোন কপিরাইট নোটিশ আপনার চ্যানেলে আসবে না কিন্তু ঐ মিউজিক গুলো যদি আপনি Adsense এ থাকা অবস্থায় ব্যবহার করেন তাহলে আপনাকে অটো ক্লাইম করে দিবে তো সুতারং এটা একটা বড় ধরনের সুবিধা আমি মনে করি।

৫/ এক্সট্রা এড:  আমরা নরমালি Adsense ব্যবহার করলে চার ধরনের এড পেয়ে থাকি, আমাদের চ্যানেটি যদি কোন এম.সিএন এ জয়েন কারা থাকে সে ক্ষেত্রে ছয় ধরনের এড আমরা পেয়ে থাকি তার মানে হচ্ছে extra দুই ধরনের এড আমরা পেয়ে থাকি। এরমধ্যে প্রথমটি হচ্ছেন Unstoppable ADS, আরেকটি হচ্ছে নণ স্কিপ লং ADS।

১/ Unstoppable ADS মানে হচ্ছে আমরা যখনই ইউটিউবে ভিডিও দেখি দেখবেন কোন এড স্কিপ করা যাচ্ছে না স্কিপ করা না যাওয়ার কারণে আমাদের বাধ্যতামূলক এটা দেখতে হয় তারপর ভিডিওটা দেখতে হয় সেটি হচ্ছে Unstoppable ADS

২/ নণ স্কিপ লং ADS  হচ্ছে যে এড গুলো মোটামুটি দুই মিনিট তিন মিনিটের এড এই অ্যাডগুলো কিন্তু কোনভাবেই স্কিপ করা যায় না যারা বিউয়ার থাকবে তাদেরকে কিন্তু সম্পুর্ণ এড দেখতে হবে যদি সে ভিডিওটি দেখতে চায় তো সে ক্ষেত্রে আপনার ইনকামও অবশ্যই বেড়ে যাবে এ দুটি এক্সট্রা এড ব্যবহার করার জন্য। তো এটি আসলে মোটামুটি খুব বড় ধরনের একটা সুবিধা।

৬/ Sponsorship: আমরা normal যারা কনটেন্ট ক্রিয়েটর তারা যদি Sponsor নিতে চায় তাহলে Sponsor কোম্পানিগুলোর সাথে আমাদের আলাপ করতে হবে কিন্তু আপনি যদি কোন এম সি এন এ join করেন তাহলে এম সি এন কোম্পানি গুলো আপনাকে Sponsorship সাথে চুক্তি করিয়ে দিবে এর জন্য আপনার সরাসরি কোন কোম্পানির কাছে যেতে হবে না, তাকে বলতে হবে না যে আমাদের চ্যানেলে আপনারা স্পন্সর করেন। আসলে এম সি এন কোম্পানিগুলোর সাথে বড় বড় ব্র্যান্ডের রিলেশন থাকে সেখান থেকে আপনি খুব সহজেই স্পন্সর ম্যানেজ করে নিতে পারেন।

৭/ Copyright claim:  সাধারন ভাবে আমরা যদি এডসেন্সে থাকি তাহলে আমাদের চ্যানেলে যদি কোন কপিরাইট আসে সেক্ষেত্রে আমরা যদি ইউটিউভ সাথে যোগাযোগ করি তাহলে দেখবেন অনেক সময় নেয়। যেমন দুইদিন তিনদিন চার থেকে পাঁছ দিন অথবা সাত দিন পর্যন্ত হয়ে থাকে তো আমরা যদি কোন এম সি এন এ join করা অবস্থায় থাকি সে ক্ষেত্রে mcn company নিজেই আমাদের কপিরাইট সমস্যা দেখবে। যদি আমাদের চ্যানেল এ ভুল ক্রমে কোন কপিরাইট ক্লেম আসে তাহলে ইউটিউব এর সাথে সরাসরি কন্টাক্ট করে আমাদের কপিরাইট ক্লেম টি শরীয়ে নিবে।

৮/ Collaboration:  আপনি চাইলে একটি চ্যানেল আর একটি চ্যানেলের সাথে কলাব্রেট করে ভিডিও তৈরি করতে পারেন,  এই সুবিধা শুধু mcn আপনাকে দিয়ে থাকে আমরা এডসেন্সে যখন থাকি normally, আমারা আমাদের চ্যানেলের কোনো ভিডিও যদি অন্য কোনো বড় চ্যানেলে প্রমোট করতে চাই সে ক্ষেত্রে ঐ চ্যানেলের মালিকের সাথে আমাকে contact করতে, হয় যোগাযোগ করতে হয়, কিন্তু আপনি যদি কোন এম সি এম এর কোম্পানিতে থেকে থাকেন সে ক্ষেত্রে  এম সি এম কোম্পানিগুলোর আন্ডারে যতগুলো বড় চ্যানেল থাকবে তাদের সাথে সহজ ভাবে কলাব্রেট করে আপনি আপনার ভিডিও, তাদের চ্যানেলে প্রমোট করতে পারবেন।

৯/ Production Support:  কোন ভিডিও করার জন্য আপনার যদি মোটামুটি কোন ইনভেস্ট এর প্রয়োজন পড়ে, যে ইনভেস্ট এখন আপনার হাতে নেই বা আপনি ইনভেস্ট করতে পারছেন না। এরকম অনেক এম সি এন কোম্পানি আছে যে আপনাকে ৫০%  বা কোন শর্ত সাপেক্ষে আপনাকে  কিছু Production Support দিয়ে থাকবে, যেগুলো আপনি নিয়ে Production Support কমপ্লিট করতে পারেন। সে ক্ষেত্রে আপনার চ্যানেল খুব বড় ধরনের হতে হবে এবং খুব জনপ্রিয় হতে হবে এবং এ সুবিধা কিন্তু সব mcn Company দেয় না খুব অল্প কিছু mcn কম্পানি আছে যেগুলো এ ধরনের সুবিধা দিয়ে থাকে 

১০/ Life Event:  ইদানিং অনেক Life Event হয়ে থাকে বিভিন্ন স্থানে। যে ইভেন্টগুলোতে আপনি চাইলে অংশগ্রহণ করতে পারবেন mcn এর মাধ্যমে। mcn আপনাকে এই সুযোগটা করে দিবে। ধরুন আপনি একজন শিল্পী আপনার একটা চ্যানেল রয়েছে যেখানে আপনি কাজ করেন শুধুমাত্র কেবল আপনার গাওয়া গানগুলো নিয়ে। আপনি যদি চান এই ধরনের বিভিন্ন লাইভ event এ আপনি পারফর্ম করতে, তো এই সুযোগটি আপনাকে আপনার এম সি এন Company করে দিতে পারবে।

১১/ Audience Development: mcn কোম্পানি গুলোর সাথে আসলে অনেক পরিমান চ্যানেল এড থেকে তো তাদের সাথে  বিভিন্ন ধরনের প্রমোশনাল কোম্পানিগুলো Brand যুক্ত থাকে। তাদের যে নিজস্ব Youtube Channel থাকে নিজস্ব সোশ্যাল মিডিয়ার পেজগুলো থাকে, পেজগুলো গুলোর মাধ্যমে আপনার চ্যানেলটিকে তারা Automatic প্রোমোট করবে, promotion করবে, আর আপনার Audience Develop করতে যা যা করা দরকার সে কাজ গুলো খুব সহজে তারা করে দিবে। যার জন্য আপনার চ্যানেলটি খুব দ্রুত ভালো একটা পজিশনে যাবে। শুধুমাত্র mcn এ ধরনের সহযোগিতা করে থাকবে।

12/ Control CTR: অনেক সময় আপনার এডসেন্স এর ctr যদি বেড়ে যায় তাহলে আপনার adsense টি বিনা নোটিশে সাসপেন্ড করে দেয় আর আপনি যদি কোন এম সি এন এ join করে থাকেন তাহলে এই ctr কন্ট্রোলে রাখার জন্য ওরা আপনাকে সহযোগিতা করে থাকবে।

 ১৩/ High CPC: আপনি যদি Adsense এ জয়েন করে থাকেন তাহলে আমরা সাধারনত 1000 ভিউতে 1 ডলার পেয়ে থাকি, কিন্তু আপনি যদি কোন mcn এ join থাকেন, তাহলে আপনি তার থেকে বেশি ইনকাম করতে পারেন সেটা হতে পারে দেড় dollar বা তারও বেশি তারা আপনাকে হাই সিপিসি এড গুলো দিবে যাতে করে আপনার cpc বেশি থাকবে এবং আপনার ইনকামও বেশি হবে
তো এগুলোই হচ্ছে আসলে mcn এর সুবিধা আপনি যদি কোনে এম সি এন এ যয়েন করে থাকেন, তাহলে এই ধরনের সুবিধা আপনি পেয়ে থাকবেন।

তবে সব এম সি এন কম্পানি এক রকম সুঝগ সুবিদা দেয় না। এক কম্পানি এক ধরনের সুবিদা প্রদান করে থাকে যে সুবিধা গুলো বেশির ভাগ কম্পানি দিয়ে থাকে আমি তা উল্লেখ করলাম।

এখন আমি কথা বলব mcn এ জয়েন করলে আপনার কি কি অসুবিধাগুলি হতে পারে:

১/ কন্ট্রাক্ট: প্রত্যেকটা mcn কোম্পানিতে যোগ দেওয়ার আগে একটা কন্ট্রাক্ট এ আপনাকে সাইন করতে হবে। একটি কন্ট্রাক্ট অবশ্যই আপনাকে দেখতে হবে। প্রত্যেকটা mcn এর নিজস্ব একটা কন্টাক্ট থাকে, অনেক কোম্পানি 6 মাস এর কন্টাক করে, আবার অনেক company এক বছর অথবা 5 বছর পর্যন্ত contact করে থাকে তো আপনি যখন এমসিএন এ join করবেন তখন আপনি একটি কন্ট্রাক্ট এ সাইন করে যয়েন করতে হবে। ধরুন আপনি একটা এমসিএন এ join করলেন তো সেখানে আপনি কন্ট্রাক্ট সাইন করেছিলেন পাঁচ বছরের জন্য এই পাঁচ বছরের মধ্যে আপনি কোন ভাবেই এম সি এন থেকে বের হতে পারবেন না। আপনাকে অবশ্যই ওই পাঁচ বৎসর ঐ company এর সাথে থাকতে হবে। কোনভাবে আপনি এ কন্ট্রাক্টটি ব্রেক করে ঐ mcn কোম্পানি থেকে বাহির হতে পারবেন না। তো এটি একটি খুব বড় ধরনের সমস্যা।

২/  Revenue split: নরমালি আমরা যখন এডসেন্সে join থাকি adsense আমাদেরকে 55 শতাংশ revenue দিয়ে থাকে এডসেন্স 45 শতাংশ নিয়ে যায়, ধরুন আপনার চ্যানেলে income হয়েছে 100 ডলার, এর থেকে adsense আপনাকে 55 ডলার দিবে আর 45 ডলার এডসেন্স নিয়ে যাবে এখন আপনি যদি কোন mcn কোম্পানিতে জয়েন করেন। সেক্ষেত্রে এই যে ৫৫% আপনি পাচ্ছেন তার থেকে আবার mcn company তার রোল অনুযায়ী ভেরি করবে ১০%, 20%, 30%. এরকম বেরি করবে, ধরুন আপনি একটি এমসিএন এ join করলেন সেখানে আপনি কন্টাক্ট সাইন করলেন যে ৩০ শতাংশ income আপনি তাদেরকে দিয়ে দিবেন এখন ধরুন আপনার ইনকাম হচ্ছে 100 ডলার এরমধ্যে 45 ডলার google adsense কে দিয়ে দিতে হবে আর থাকবে 55% এর থেকে আবার mcn কে 30% দিতে হবে তো আসলে এটি হচ্ছে একটি বড় ধরনের সমস্যা তবে যাদের বড় ধরনের চ্যানেল আছে। যেহেতু তারা অনেক ধরনের সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে তাদের জন্য এটা কোন সমস্যা না।

৩/ প্রমিস: অনেক সময় তারা অনেক পরিমাণে ওয়াদা দিয়ে থাকে, যে আপনি যদি আমাদের mcn এ যোগ দেন। আমরা আপনাকে এই সুবিধা দিবো ঐ সুবিধা দিব এই সুবিধাগুলো আপনি পাবেন যেটা অন্য কোন mcn কোম্পানি আপনাকে দিবে না, এই সুবিধাগুলো শুধুমাত্র আমরা দিয়ে থাকি আমরা রেভিনিউ শেয়ার আপনার কাচ থেকে খুব কম নিয়ে থাকি অনেক সময় হয়ত আপনারা খেয়াল করেন যে আপনাদের চ্যানেলের জিমেইলে কিছু মেইল আসে যেখানে তারা অনেক ধরনের প্রমিস করে থাকে এবং বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা দেওয়ার কথা বলে কিন্তু আসলে পরে দেখা যায় যে তারা এ ধরনের সুযোগ-সুবিধা কোনটাই আপনাকে দিচ্ছে না বা কোনটাই আপনাকে দিবে না তো আসলে এটি হচ্ছে তাদের একটি বড় সমস্যা আমি মনে করি ধরুন আপনি তাদের সুযোগ সুবিধার কথা শুনে তাদের কোম্পানিতে যোগ দিলেন কিন্তু কিছুদিন পরে আপনি দেখতে পারবেন যে সুবিধাগুলো ওরা আপনাকে দিবে বলছে তা আর দিচ্ছে না এটি একটি বড় ধরনের সমস্যা।

৪/ বিশ্বাস বা trust: আমরা গুগুল এডসেন্সকে চোখ বন্ধ করে বিশ্বাস করতে পারি, কারন মাস শেষে আপনার এডসেন্স এ যদি 100 ডলার বা তার বেশি হয় এটা অটোমেটিক আপনার কাছে চলে আসবে সেটা হোক আপনার ব্যাংক একাউন্ট অথবা চেকের মাধ্যমে এ বিশ্বাসটা আমরা কোন mcn অথবা কোন থার্ডপার্টি কোম্পানিকে বিশ্বাস করতে পারি না, কারণ অনেক সময় দেখা গেছে তারা আপনার সাথে কন্টাক্ট করেছে যে আপনার কাছ থেকে ওরা 45% নেবে কিন্তু দেখা গেছে তারা 50% অথবা 55% নিয়ে যায়। অথবা আপনাকে পেমেন্ট না দিয়েই আপনাকে রিলিস করে দেয়, এ ধরনের অনেক report আছে, বিভিন্ন mcn company এর বিরুদ্ধে, তবে হ্যাঁ কিছু কোম্পানি আছে যে তারা তাদের দেওয়া কথা রাখে ও বেশিরভাগ company তারা তাদের ওয়াদা রাখতে পারে না তো এটা আরেকটা বড় ধরনের সমস্যা আমি মনে করি আপনি টাকা ইনকাম করার জন্য ইউটিউব চ্যানেল নিয়ে কাজ করেন কিন্তু মাস শেষে দেখা গেল যে আপনার ইনকাম কৃত টাকা আপনি পেলেন না অথবা আবেদন পত্রে যা পাওয়ার কথা ছিল ওতুটুক পান নাই। তাহলে কেমন লাগবে আপনার একটি চিন্তা করে দেখেছেন।

তো এখন আসুন আমরা adsense এবং ncm এর মধ্যে পার্থক্য কি তা দেখি ।


কখন আপনি এম সি এন যোগ দিবেন?

১/ বড় চ্যানেল: আপনার চ্যানেল টি যদি অনেক বড় ও বেশি ভিডিও থাকে তাহলে আপনি এম সি এন এ যোগ দিতে পারেন, করন এরা আপনাকে অনেক দরনের সাহয্য করবে, এতে যদি আপনার থেকে বেশি টাকা নিয়েও থাকে তাতে আপনার লস হবে না।

২/ চ্যানেল লেবেল: আপনার চ্যানেল লেবেল যদি হাই হয় তাহলে ও আপনি এম সি এন এ যোগ দিতে পারেন।

নিছে দেশ অনুসারে সবচাইতে ভাল এম সি এন এর নাম দেওয়া হলো, এখান থেকে কোন এম সি এন কোম্পানি আপনার জন্য ভাল হবে:

সারা বিশ্বে যেগুলা জনপ্রিয়: 

I Broadband TV

2. Vevo

3. Fullecreen Network

4. Yoola

5. AIR

6. Studio 71

7. Scalelab

8. Maker Studio

9. StyleHaul

10. Union OlGamer

ভারত এর জন্য যেগুলা জনপ্রিয়:

1. One Digital Entertainment

2. Qyuki

3, Culture Machine

4. Ping Network

5. Nirvanda Digital

6. Dive

7. Tamada Media

বাংলাদেশ এর জন্য যেগুলা জনপ্রিয়:

1. Qinclic MusicLLC

2. BongoBD

3. Total Sports Marketing

4. NTVOnIine

5. Gseres_muslc

শেষ কথা: সব কথার বড় কথা হচ্ছে Adsense হচ্ছে সবার শেরা আমার মতে, কারন Adsense টাকা নিয়ে কো জামেলা করে না, আর আসা করি পোস্টটি আপনাদের ভাল লাগবে ও ্উপকারে আসবে, যদি এমন হয় তাহলে আমার এই পোস্টটি শেয়ার করবেন।আর আমার লিখায় কোন ভুল থাকলে নিছে কমেন্ট করে যানানোর জন্য অনুরুদ করলাম, ধন্যবাদ সবাইকে, আমার সাইট এ আসার জন্য ও সময় নিয়ে পোস্টটি পড়ার জন্য। এবং সব শেষে নিছে ভিডিও টা দিয়ে দিলাম যা দেখেও আপনারা জানতে পারবেন এম সি এন এর বেপারে।

Comments

  1. ভাই কিভাবে joined করবো তার একটা ভিডিও দেন

    ReplyDelete

Post a Comment